1. arkobd1@gmail.com : arkobd :
  2. dharmobodi88@gmail.com : dharmobodi :

শিরোনামঃ
ত্রিপিটক বিশারদ,  ভদন্ত দীপানন্দ  স্থবিরের  মহাস্থবির বরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয় মহামারী করোনা ভাইরাস সর্তক হোন ভদন্ত শাসনপ্রিয় মহাস্থবির ও জে ধর্মবোধি স্থবির মহোদয়ের পিতা’র পরলোক গমন কুমিল্লায় ভিক্ষু পরিবাসব্রত ওয়াইক ও ব্যূহ চক্র মেলা পন্ডিত বিমলজ্যোতি মহাস্থবির মহোদয় পরলোকগমন করেছেন আওয়ামী লীগের কর্মী হিসেবে আপনাদের পাশে থাকতে চাই:ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া ৯০ হাজার প্রাণির জীবন বাঁচিয়েছে অস্ট্রেলিয়ান এই পরিবার ৮ বছর বয়সী জুরনি চাকমার জীবন বাঁচাতে আবেদন জাতক কাহিনী: গৌতম বুদ্ধের পূর্বজন্মের কাহিনী নিয়ে রচিত এক অসাধারণ সাহিত্যকর্ম বৌদ্ধদের প্রধান ধর্মগ্রন্থ প্রবিত্র ত্রিপিটক পরিচিতি

বড়ুয়াদের এই আত্মহত্যা ঠেকাবে কে?

  • আপডেটের সময়ঃ শনিবার, ২৮ ডিসেম্বর, ২০১৯
  • ১৪২ বার পঠিত

বড়ুয়াদের এই আত্মহত্যা ঠেকাবে কে?

পন্ডিত শ্রদ্ধেয় প্রজ্ঞাবংশ মহাস্থবির

যে সম্প্রদায় যত ছোট হয়, সে সম্প্রদায় হারিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা ততো বেশী। প্রথমে সে হারায় তার মেধাবী জনকে। তারপরে হারায় জনসংখ্যাকে। তারপরে হারায় ভাষা, সংস্কৃতি, ইতিহাস-ঐতিহ্য ও ধর্ম-দর্শন কে। সর্বশেষে হারায় জ্ঞাতী- স্বজন কে। এক নিমিষে সব কিছু হারিয়ে যায় ধর্মন্তরের মাধ্যমে।

পৃথিবীর সবচেয়ে খুদে জনগোষ্ঠী গুলোর অন্যতম বড়ুয়া বৌদ্ধ সম্প্রদায়। তারা মাত্র ত্রিশ বছর আগেও এতো ব্যাপক ভাবে জন্ম-ভূমি ছেড়ে বিদেশে ধাবিত হয়নি। এই তিন দশকেই সবচেয়ে বেশী বড়ুয়া মেধাবী সন্তানেরা ধর্মান্তরিত হওয়ার মাধ্যমে হঠাৎ করে সবকিছু হারিয়েছেন। সেই সাথে বড়ুয়া পিতা ও মায়েরা একটি দুটি সন্তানের বেশী সন্তান পালনের কষ্টকে বরণ না করার ইচ্ছায় বেশী আগ্রহী হয়ে উঠেছেন ঠিক এই তিন দশকের মধ্যেই। তা বড়ুয়া সম্প্রদায় টি বিলুপ্তিতে ভিন্নমাত্রা যোগ করেছে।

বড়ুয়াদের এই আত্মহনন প্রবৃত্তি ঠেকাবেন কে? আমি আপনি কেই না। অদৃশ্য এমন কোন শক্তিমানের আশীর্বাদ ও কাজ দেবে না এ আত্ম হনন কে রোধে।

তাই আত্ম হনন প্রবৃত্তি গুলো সম্পর্কে গণ সচেনতা সৃষ্টি একান্ত জরুরী। কিছুদিন আগে ধর্মান্তর নিয়ে বেশ মাতামাতি চলেছে শুধু ফেইসবুকে। তাও মন্দের ভালো। তবে এমন ভালোও যে পরিবর্তন আনতে পারবে না ; বর্তমান ঘুমন্ত অবস্থাই তার প্রমাণ।

তখন চেয়ে ছিলাম মাত্র দু’জন ব্যক্তি এক বা দুই মাস বেতনধারী হিসেবে হলেও গ্রাম আর নগরের বিহার গুলো সংশ্লিষ্ট পরিবার, আর ধর্ম- সমাজের ধার-ধারেন না এমন পরিবার গুলো সহ ইদানিং সৃষ্ট উছালা গ্রুপ, শীলানন্দ গ্রুপ, শরণাংঙ্কর গ্রুপ, দীপংকর গ্রুপ, রিসিহো কোসিকাই গ্রুপ, গুলোর পারিবারিক তথ্য সংগ্রহ করে প্রত্যেক নিকায় ও গ্রুপের প্রতিনিধি নিয়ে দেশে ও বিদেশে বৈঠকে বসতে।

এই বৈঠকেই বৌদ্ধ পারিবারিক আইন যা ইতিমধ্যে বিতর্কের কারণে স্থগিত আছে তাকে প্রয়োজনীয় সংশোধনের মাধ্যমে বর্তমান সরকারের আমলেই রাষ্ট্রীয় আইনের আওতায় আনতে।
পরিবার কে দৈনিক ও সপ্তাহিক মেডিটেশন চর্চা এবং বুদ্ধ প্রেম, সংঘ প্রেম, জ্ঞাতী প্রেম, জাতী প্রেম ও দায়িত্ব কর্তব্য জ্ঞান সৃষ্টি মুলক শিক্খা অনুশীলনে এভাবে বাধ্যবাধকতায় নিয়ে আসার পদক্ষেপ টি একান্ত জরুরী কি না ; তা বিবেচনায় আনার জন্যে আমার আবেদনে সাড়া দেবেন কি?

অনুগ্রহ করে এই খবরটি সোশাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো খবর
জ্ঞানঅন্বেষণ কর্তৃক সকল অধিকার সংরক্ষিত © ২০১৯
Developed By: Future Tech BD