1. arkobd1@gmail.com : arkobd :
  2. dharmobodi88@gmail.com : dharmobodi :

মোট আক্রান্ত

সুস্থ

মৃত্যু

  • জেলা সমূহের তথ্য
ন্যাশনাল কল সেন্টার ৩৩৩ | স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ | আইইডিসিআর ১০৬৫৫ | বিশেষজ্ঞ হেলথ লাইন ০৯৬১১৬৭৭৭৭৭ | সূত্র - আইইডিসিআর |
তৈরি করেছেন - মুন্না বড়ুয়া
প্রয়োজনীয়ঃ
আপনার প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইট,সফটওয়্যার কিংবা মোবাইল এপ তৈরি করতে আজই যোগাযোগ করুনঃ ০১৯০৭৯৮৬৩৬৯ আমরা যেসব সার্ভিস দিয়ে থাকিঃ বিজনেস ওয়েবসাইট,ই-কমার্স ওয়েবসাইট,সোশ্যাল ওয়েবসাইট,অনলাইন নিউজপেপার,বেটিং ওয়েবসাইট,কেনা বেচার ওয়েবসাইট,শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইট ইত্যাদি। আমরা আরো যেসব সেবা দিয়ে থাকিঃ সুপারশপ সফটওয়্যার,ফার্মেসি সফটওয়্যার,ক্লথিং/বুটিক ষ্টোর সফটওয়্যার,একাউন্টিং সফটওয়্যার,HRM ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যার,স্কুল/কলেজ ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যার সহ সকল ধরনের মোবাইল এপ তৈরি করে থাকি আপনার বাজেটের মধ্যেই। তো দেরি না করে আজই যোগাযোগ করুন এবং অর্ডার করুন আপনার চাহিদা মত সেবা। ফিউচার টেক বিডি
শিরোনামঃ
বরণ্য পুণ্যপুরুষ ভদন্ত বুদ্ধপিয় মহাথেরো’র সংক্ষিপ্ত জীবন বৃত্তান্ত সংঘরাজ ভিক্ষু মহামন্ডল এলাকায় সকাল বেলায় কঠিন চীবর দান শেষ করার নির্দেশ রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ের দুই সচিবের চুক্তির মেয়াদ বাড়লো কোরিয়াতে রাজকীয় বিহারে সংঘদান,প্রবাসীদের মিলনমেলা দীর্ঘ আট মাস পর বাংলাদেশকে কালো তালিকা মুক্ত করলো দঃ কোরিয়া সংঘরাজ ভিক্ষু মহাসভার নবনির্বাচিত কার্যকরী পরিষদের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান সম্পন্ন অধ্যাপক প্রকৌশলী মৃণাল কান্তি বড়ুয়ার ৭৫তম জন্মবার্ষিকী উৎসব সুসম্পন্ন ফ্রান্সে তিন বাংলাদেশীর মৃত্যুতে বৌদ্ধ কমিউনিটিতে শোকের মাতম মাঘী পূর্ণিমার তাৎপর্য এবং অনিত্য দর্শন সম্মিলিত বৌদ্ধ নাগরিক পরিষদ’র মতবিনিময় সভায় ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া দৈনিক ইনফো বাংলার সিলেট বিভাগীয় প্রধান উৎফল বড়ুয়ার শীতবস্ত্র বিতরণ বাংলাদেশী গবেষক “ডেভিড বড়ুয়ার” আয়ারল্যান্ড থেকে PhD ডিগ্রি অর্জন

রোনালদো জুভেন্টাসেও ইতিহাস গড়বেন

  • আপডেটের সময়ঃ শনিবার, ২৫ আগস্ট, ২০১৮
  • ৪৩৯ বার পঠিত

প্রশ্ন: তুরিনে কেমন কাটছে?
ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো: সত্যি খুব ভালো কাটছে। খুব আনন্দে আছি। আমাদের দলটিও খুব ভালো। আমি খুবই বিস্মিত। আমরা সবাই এখানে সব সময় কঠিন পরিশ্রম করি। সহজ দিন বলে এখানে কিছু নেই।
প্রশ্ন: ইতালিতে অনুশীলন সেশন নাকি খুব কঠিন?
রোনালদো: হ্যাঁ, ঠিক তাই। তবে এখানে তারা যেভাবে অনুশীলন করে সেটা আমার ভালো লাগে। এটা ভালো। এখানে সবাই খুব পেশাদার। আর এ কারণেই আমি সবকিছু উপভোগ করছি।
প্রশ্ন: জুভেন্টাসকে কেন বেছে নিলেন?
রোনালদো: জীবনে যেকোনো বিষয়ই কোনো না কোনো কারণে ঘটে। এটাও সে রকম একটা বিষয় ছিল। এই ক্লাবে খেলব বলে আশা করিনি। তবে বিষয়টা ঘটে গেছে। এটা সবারই জানা, জুভেন্টাস বিশ্বের অন্যতম সেরা ক্লাব। তাই এখানে আসার সিদ্ধান্ত নেওয়াটা আমার জন্য খুব সহজ ছিল। এটা ঠিক যে রিয়াল মাদ্রিদে আমি যা করেছি, তা ছিল অবিশ্বাস্য। ক্লাবটিতে আমি সবকিছু জিতেছি। ওখানে আমার বন্ধু আর পরিবার আছে। এরপরও এই ক্লাবে আসার সিদ্ধান্ত নেওয়াটা সহজ ছিল। তারা আমার জন্য সবকিছু করেছে এবং আমাকে একটি সুযোগ দিয়েছে। জুভেন্টাসেও আমি ইতিহাস গড়তে চাই।
প্রশ্ন: জুভেন্টাসের বিপক্ষে চ্যাম্পিয়নস লিগের ইতিহাসে অন্যতম দর্শনীয় গোলটি করেছেন। জুভেন্টাসের সমর্থকেরাও উঠে দাঁড়িয়ে আপনাকে অভিবাদন জানিয়েছিল। তুরিনে আসার জন্য এটির কি কোনো ভূমিকা ছিল?
রোনালদো: কেউ কেউ এটাকেই আমার জুভেন্টাসে আসার কারণ বলে। কেউ হয়তো বলে এটাই কারণ নয়। আমি যেটা বলব তা হলো, শেষে এসে অনেক ক্ষুদ্র বিষয়ও সবচেয়ে বড় পার্থক্য গড়ে দেয়। সত্যি বলতে কী, এই মাঠে যেটা দেখেছিলাম তার ভূমিকা ছিল। দুর্ভাগ্যজনকভাবে ওই গোলটি আমি আমার এখনকার ক্লাবের বিপক্ষে করেছিলাম। তবে এটা এখন অতীত। আমার কাছে তো গোলটি আমার ক্যারিয়ার-সেরা। মাঠে সমর্থকেরা যখন হাততালি দিতে শুরু করেছিল, আমি অবাক হয়েছিলাম। এমনটা আমার জীবনে এর আগে কখনো ঘটেনি বলেই আমি এতটা বিস্মিত হয়েছিলাম। অবিশ্বাস্য এক মুহূর্ত ছিল সেটা।
প্রশ্ন: এই মৌসুমে নিশ্চয়ই চ্যাম্পিয়নস লিগ জিততে চান? 
রোনালদো: নিশ্চয়ই। জুভেন্টাসের হয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগ জিততে চাই। আমি ও আমার সতীর্থরা এটির প্রতিই মনোযোগী থাকব। তবে এটি নিয়ে যে আমরা আচ্ছন্ন হয়ে পড়েছি, তা নয়। আমরা ধাপে ধাপে এগোতে চাই। এরপর দেখব চ্যাম্পিয়নস লিগ আমরা এ বছর, পরের বছর, নাকি তিন বছর পর জিতি। জুভেন্টাসের লক্ষ্য সিরি ‘আ’ আর ইতালিয়ান কাপ জয়। আর চ্যাম্পিয়নস লিগ জিততে অবশ্যই আমরা নিজেদের সর্বোচ্চ চেষ্টাই করব।
প্রশ্ন: আপনাকে ৭ নম্বর জার্সি দেওয়া হয়েছে…
রোনালদো: হ্যাঁ, এটা আমার পছন্দের নম্বর। আমি ক্লাব কর্তৃপক্ষ আর কুয়াদ্রাদোর সঙ্গে কথা বলেছিলাম। সে আমাকে বলেছিল, ‘কোনো সমস্যা নেই। তুমি এই জার্সিটা পেলে আমি বরং খুশিই হব।’ সবকিছুই চমৎকারভাবে গেছে। জুভেন্টাস কর্তৃপক্ষ আর কুয়াদ্রাদো এত সহায়তাপ্রবণ দেখে আমি বিস্মিতই হয়েছি।
প্রশ্ন: একবার বলেছিলেন, স্যার অ্যালেক্স ফার্গুসন আপনার কাছে বাবার মতো। এখনো এটা মনে করেন?
রোনালদো: অবশ্যই, আমার ক্যারিয়ারের শুরুতে তিনি আমার জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন। স্পোর্টিং থেকে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে নাম লেখানোর পরও আমার মধ্যে পর্তুগিজ মানসিকতা ছিল। বল ড্রিবলিং করতাম খুব বেশি। মাঠে মাঝেমধ্যে সঠিক সিদ্ধান্তই নিতে পারতাম না। তিনি আমাকে শিখিয়েছেন, একজন খেলোয়াড়কে কীভাবে উন্নতি করতে হয়। প্রিমিয়ার লিগের ডিফেন্ডাররা আর তিনিই আমাকে সব শিখিয়েছেন। এ কারণেই আমি তাঁকে সব সময় আমার ফুটবলের বাবা মনে করি।
প্রশ্ন: চাপ কীভাবে সামলান?
রোনালদো: এটা সহজ ব্যাপার নয়। কিন্তু কখনো কখনো আমি চাপের মধ্যে খেলাটা উপভোগ করি-ইতিবাচক চাপ। বেশি দায়িত্ব নেওয়াটা নেতিবাচক হয়ে যেতে পারে। তবে এটা কাজেরই অংশ। এটা সিআর সেভেন হওয়ার অংশ। এটা কোনো সমস্যা নয়। আমি জানি কীভাবে এটা সামলাতে হয়।

এই খবরটি সোশাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো খবর

বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস

সর্বমোট

আক্রান্ত
সুস্থ
মৃত্যু
সূত্র: আইইডিসিআর

সর্বশেষ

আক্রান্ত
সুস্থ
মৃত্যু
স্পন্সর: একতা হোস্ট
জ্ঞানঅন্বেষণ কর্তৃক সকল অধিকার সংরক্ষিত © ২০২০
Developed By: Future Tech BD